1. bnews786@gmail.com : bdtv.press :
  2. bdtvbd20@gmail.com : Hasan Sha : Hasan Sha
শনিবার, ২১ নভেম্বর ২০২০, ০৩:২৭ পূর্বাহ্ন

সুবর্ণচরে ৫ টুকরো লাশের রহস্য উদঘাটন ।

  • আপডেট: বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৩ বার পড়া হয়েছে

আবুল বাসার||সুবর্ণচর প্রতিনিধি||নোয়াখালী।

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে চরজব্বর ইউনিয়নে ৭ অক্টোবর ধান ক্ষেতে মহিলার মাথা পাওয়া যায়। কিন্তু কেউ লাশ চিনতে পারল না। হঠাৎ এক লোক বয়স অনুমান ২৭ চিৎকার দিয়ে বলে এটা অামার মায়ের মাথা লোকটা তখনও লাশ দেখেনি. এরই মধ্যে সংবাদ কর্মীরা  তার ছেলের সাক্ষাতকার নেয়া শুরু করল। সেও দোষ চাপিয়ে মায়ের হত্যার বিচার চাইতে লাগল। রহস্য ঘনীভূত হতে থাকে। পুলিশ ও জনতা মিলে মাঠে ধানী জমিতে লাশের অন্যান্য অংশ খুঁজতে থাকলো, হাঁটু থেকে নাভী পর্যন্ত অারো একটি অংশ পাওয়া গেল। পরের দিন ঘটনার স্থলে পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সার্কেল সহ উধ্বতন কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেন। মাঠে ধানী জমি সার্চ করে লাশের ২ টি পা, বডির অংশ, ১ টি কোদাল পাওয়া যায়। লাশ ময়না তদন্তে জন্য প্রেরণ হলো. মৃত মহিলার স্বামী দুই বিয়ে করেন, ঐ ঘরের ছেলে মেয়ে অন্য জায়গায় বসবাস করে, মহিলার অাগে অন্য জায়গায় বিয়ে হয়, ঐ ঘরের একটি ছেলে নাম বেলাল সহ পরে বিয়ে হয়, বেলাল মারা যায় বছর খানেক আগে বর্তমানে মহিলার ঘরে ২ ছেলে, বড় ছেলের স্ত্রী, নাতি অাছে। ছোট ছেলে বিয়ে করেনি। তাদের জিজ্ঞাসা এলোমেলো মনে হয়। তাদের ভিতর মা হারানোর শোক দেখা যায়নি। জোরালো ভাবে মায়ের হত্যার বিচার চাইলো। বড় ছেলে বাদি হয়ে থানায় মামলা করল অজ্ঞাতনামা অাসামী করে।  উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষসহ ডিবি পুলিশ অনুসন্ধানে নামেন। প্রযুক্তির ব্যবহার করা হল। কিন্তু কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। খুনিরা অত্যন্ত ঠান্ডা মাথার। মানুষের বাড়ীতে কাজ করে।   পেলে খায়, না পেলে মানুষের কাছে হাত পাতে। বড় ছেলে স্ত্রী নিয়ে অালাদা থাকে। জনমনে প্রশ্ন দেখা দেয়.এই অসহায় মহিলাকে কে খুন করবে। কারো সাথে কোন বিরোধ নেই। মহিলার ছেলে বেলাল অনেক টাকা ঋন রেখে মারা যায়। কিন্ত তদন্তকারী অফিসার সহ তদন্ত টিম.যুক্ত হয় সিনিয়র অফিসারদের দিক নির্দেশনা।  চালানো হয় গোপন তৎপরতা ও নজরদারি। অতঃপর বাদির বন্ধুকে নেয়া হয় হেফাজতে। চালানো হয় দফায় দফায় ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ। বেড়িয়ে অাসে থলের বিড়াল। বাদিই ঘটনার মূল হোতা। কি নির্মমতা? ভাবা যায়? নিজের পেটের সন্তান, যাকে দশ মাস দশ দিন গর্ভে ধারণ করেছে। কত কষ্ট করে লালন পালন করেছে। সেই কিনা নিজ মায়ের খুনি। মহিলার স্বামী মারা যাওয়ার সময় তার দুই ছেলের নামে ১৩ শতক করে ২৬ শতক জায়গা লিখে দেন। বাকি ২৪ শতক জায়গা মহিলার নামে লিখে দেন। ছেলে বেলাল অনেক টাকা ঋনী। চেয়েছিল কিছু জমি বিক্রয় করে ছেলের ঋন শোধ করবে। এটিই কাল হল অসহায় মায়ের। ছেলে পরিকল্পনা করে বন্ধুদের নিয়ে মায়ের লাশ টুকরো টুকরো করে পঞ্চ খন্ড করে লাশ গোপন করতে  বিলের ধানী জমিতে ফেলে দেয়। কেটে ফেলা হয় তার স্তনও। অন্যকে ফাঁসানোর জন্যও ব্যাপক চল-চাতুরীর অাশ্রয় নেয়.কি নির্মমতা ভাবা যায় নিজ ছেলে মাকে এ ভাবে কেটে ৫ খন্ড করবে. বিষয়টি নিশ্চিত করে চরজব্বর থানার ওসি সাহেদ উদ্দিন জানান.মহিলার ছেলে মামলার বাদী হুমায়ন কবির.কে প্রধান আসামী করে. নিরব ২৬.নুর ইসলাম কসাই ২৭.কালাম ২৫.সুমন ২৩ কে ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় আটক করা হয়। 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© স্বর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।
এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও
অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
নির্মাতা বিডি